মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

ভেদরগঞ্জ উপজেলার পটভূমি

 

ভেদরগঞ্জ উপজেলার পটভূমিঃ ভেদরগঞ্জ  উপজেলার জনপদের বর্তমান বয়স প্রায় ৩০০ বছর। ১৯২৪ সনে প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ ও প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব বিক্রমপুর পরগণার জমিদার সৈয়দ ভেদারউদ্দিন শাহের সর্বপ্রথম ভেদরগঞ্জ থানা প্রতিষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে কালের প্রভাবে ও প্রশাসনিক চাহিদার আলোকে ১৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮৩ সনে ভেদরগঞ্জ থানা হতে উপজেলায় উন্নিত হয়। এয়ার ভাইস মার্শাল সুলতান মাহমুদ মানোন্নীত ভেদরগঞ্জ উপজেলা উদ্বোধন করেন।

ভৌগলিক বিবেচনায় ২৩.৩৮ ডিগ্রি হতে ২৩.২৪ ডিগ্রি উত্তর অক্ষা্ংশ ও ১০.২৩ ডিগ্রি ১০.৩৬ ডিগ্রি পূর্ব দ্রাঘিমা্ংশ পর্যন্ত ভেদরগঞ্জ উপজেলা বিস্তৃত।

শরীয়তপুর জেলা শহরের পূর্বদিকে মনোমুগ্ধকর প্রাকৃতিক  সৌন্দর্যমন্ডিত ও দেশখ্যাত পদ্মা নদীর দক্ষিণে এব্ং মেঘনা নদীর পশ্চিম তীরে ভেদরগঞ্জ উপজেলা অবস্থিত। এ উপজেলার দক্ষিনে ডামুড্যা উপজেলা, পশ্চিমে শরীয়তপুর সদর, উত্তর দিকে নড়িয়া উপজেলা, উত্তর পুর্ব দিকে পদ্মা এব্ং মেঘনা নামক বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ নদী।

এ উপজেলার নামকরণ নিয়ে আরও একাধিক প্রবাদ প্রচলিত আছে।এর একটি কাদা প্রবাদ নামে প্রচলিত। ভেদা শব্দের অর্থ কাদা। এক সময় এই এলাকায় প্রচুর কাদা ছিল,  কাদার জন্য মানুসষর হাটা - চলা ছিল দুষ্কর। লোকজনকে বহু কষ্টে কাদা (ভেদার) মাড়িয়ে গঞ্জে আসতে হতো। তাই এলাকাটি ভেদরগঞ্জ নামে পরিচিতি লাভ করে। অনেকের মতে এখানে  প্রচুর বেদে ছিল। নদীর পাড়ে সবসময় অস্ংখ্য বেদে বহর থাকত। তাই এলাকাটির নাম ভেদরগঞ্জ হয়েছে।

কিন্তু এগুলো নিছক প্রবাদ বলেই সকলের কাছে প্রতীয়মান। মুলত ভেদারউদ্দিন শাহের নামানুসারে ভেদরগঞ্জ নামের উৎপত্তি।